ব্রেকিং নিউজ


রোগীর স্বজনদের হামলায় চিকিৎসকের মৃত্যু খুলনায়

আলো ডেস্কঃ ১৭ জুন ২০২০ খুলনায় রোগীর স্বজনদের হামলায় চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত ব্যাক্তি মহানগরীর রাইসা ক্লিনিকের পরিচালক ডা. মো. আব্দুর রকিব খান (৫৯)। রকিব বাগেরহাট মেডিকেল অ্যাসিস্ট্যান্ট টেনিং স্কুলের (ম্যাটস) অধ্যক্ষও ছিলেন। এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ হামলার ঘটনা ঘটে। নিহতের ছোট ভাই খুলনা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রভাষক সাইফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, নগরীর মোহাম্মদ নগরের পল্লবী সড়কের বাসিন্দা আবুল আলীর স্ত্রী শিউলী বেগমকে ১৪ জুন সিজারের জন্য রাইসা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ওই দিন বিকেল ৫টায় অপারেশন হয়। বাচ্চা ও মা প্রথমে সুস্থ ছিলেন। পরে রোগীর রক্তক্ষরণ হলে ১৫ জুন সকালে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানের চিকিৎসকরাও রোগী রক্তক্ষরণ বন্ধ করতে না পেরে ঢাকায় রেফার্ড করে। ঢাকায় নেয়ার পথে ১৫ জুন রাতে শিউলী বেগম মারা যান। তিনি আরও জানান, ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, মৃত রোগীর স্বজন কুদ্দুস, আরিফ, সবুরসহ কয়েকজন মহিলা ১৫ জুন রাত ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে আমার বড় ভাই ডা. রকিবকে লাথি ঘুষি ও লাঠি দিয়ে আঘাত করে। এতে তার মাথার পেছনে জখম হয়। তাকে প্রথমে গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে শেখ আবু নাসের হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ব্যাপারে খুলনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম বাহার বুলবুল বলেন, আজ বুধবার (১৭ জুন) এখন পর্যন্ত ডা. রকিবের মৃত্যুর ঘটনায় কোনো মামলা বা আটক হয়নি। তবে পরিবার মামলা করবে বলে শুনেছি। এদিকে এই বর্বরোচিত হামলা করে চিকিৎসক হত্যা করার ঘটনায় নিন্দা জ্ঞাপন এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) খুলনার সভাপতি ও সংগঠনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. মেহেদী নেওয়াজসহ নেতারা। ডা. আব্দুর রকিব খান হত্যার প্রতিবাদে আজ বুধবার (১৭ জুন) দুপুর ১২টায় বিএমএ জরুরি সভা ডেকেছে। দুপুর ১টায় বিক্ষোভ সমাবেশ তারপর দুপুর ২টায় খুলনা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করবেন চিকিৎসকরা। এদিকে, ডা. রকিবের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে খুলনার চিকিৎসক সমাজে। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তাকে নিয়ে অনেকেই শোক প্রকাশ করছেন। হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানান তার। স্থানীয়রা জানান, জনপ্রিয় এই চিকিৎসক গরিব রোগীদের বিনামূল্যে ওষুধ দিতেন। দুস্থ-অসহায় মানুষের কাছে তিনি ছিলেন আপনজন। অনেক রোগীকে বিনামূল্যে এবং নামমাত্র মূল্যে চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ দেয়ার কারণে তাকে ‘গরিবের ডাক্তার’ বলা হতো। খুলনা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি একরামুল হক হেলাল তার ফেসবুকে লিখেছেন- বাগেরহাটে অবস্থিত ‘মেডিক্যাল অ্যাসিসট্যান্ট ট্রেনিং ইনস্টিটিউট’-এর অধ্যক্ষ, খুলনার গল্লামারীর ‘রাইসা ক্লিনিক’-এর মালিক গরিবের ডাক্তার রকিব জনৈকা রোগীর স্বজনদের হাতে নিহত হন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)! তার মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এই অঞ্চলের নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র শোকের ছায়া নেমে আসে! রাব্বুল আলামিন এই নিরহঙ্কারী পরোপকারী মানুষটাকে জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন! আমিন। সিনিয়র সাংবাদিক হায়দার আলী তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন- রোগী মৃত্যুর ঘটনায় খুলনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডাক্তার রকীবকে মেরেই ফেললো রোগীর স্বজনরা! মানুষ কত ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে।

add_28

নিউজটি শেয়ার করুন

Facebook
এ জাতীয় আরো খবর..
add_29
সর্বশেষ আপডেট
জনপ্রিয় সংবাদ
আজকের পাঠক
15910

add_30
add_31
add_32

সংবাদ শিরোনাম ::